১৫ কোটি টাকার পিপিই কিট দেবে বেক্সিমকো

১৫ কোটি টাকার পিপিই কিট দেবে বেক্সিমকো

করোনাভাইরাসের প্রভাব মোকাবিলায় ১৫ কোটি টাকা মূল্যের ব্যক্তিগত সুরক্ষা সরঞ্জাম (পিপিই), ওষুধ ও টেস্ট কিট সরবরাহ করার ঘোষণা দিয়েছে বেক্সিমকো গ্রুপের প্রতিষ্ঠান বেক্সিমকো ফার্মা। গতকাল শনিবার রাজধানীর একটি হোটেলে আয়োজিত অনুষ্ঠানের মাধ্যমে বিভিন্ন পরীক্ষা কেন্দ্র ও করোনা আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসায় সরকার নির্ধারিত হাসপাতালগুলোর প্রতিনিধিদের কাছে প্রথম ধাপের উপকরণ হস্তান্তর করেন বেক্সিমকো ফার্মার ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) নাজমুল হাসান।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশে জাতিসংঘের আবাসিক সমন্বয়ক মিয়া সেপ্পো, আইসিডিডিআর-বি’র সংক্রমণশীল রোগ বিভাগের জ্যেষ্ঠ পরিচালক অধ্যাপক অ্যালেন রস, বাংলাদেশে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) প্রতিনিধি ডা. বর্দন জং রানা, সিডিসির কান্ট্রি ডিরেক্টর ডা. মাইকেল ফ্রিডম্যান, আইইডিসিআরের পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা ও বাংলাদেশ সোসাইটি অব মেডিসিনের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ডা. আহমেদুল কবির উপস্থিত ছিলেন।

বেক্সিমকো গ্রুপের চেয়ারম্যান এএসএফ রহমান বলেন, যেকোনো ধরনের জাতীয় দুর্যোগে সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিতে বেক্সিমকো গ্রুপ সবসময়ই বদ্ধপরিকর। তিনি বলেন, করোনাভাইরাসের বিস্তার বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে যখন বিশ্বের প্রায় প্রতিটি দেশই আক্রান্ত হচ্ছে, তখন এই মহামারীর প্রভাব মোকাবিলায় আমরাও এক নজিরবিহীন চ্যালেঞ্জের মুখে।

তিনি আরও বলেন, পিপিই প্রাপ্তি নিশ্চিত করা এই মুহূর্তে অন্যতম প্রধান অগ্রাধিকার। আর বাংলাদেশের স্বাস্থ্যসেবা পেশাজীবীদের নিরাপত্তা নিশ্চিতের এই প্রয়োজনের সময় সাড়া দিতে পেরে আমরা গর্বিত। দায়িত্বশীল ব্যবসা প্রতিষ্ঠান হিসেবে আমরা এই সাংঘাতিক সংকট মোকাবিলায় সরকারকে আন্তরিকভাবে সহায়তা অব্যাহত রাখব।

প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা এবং বেক্সিমকো গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান সালমান এফ রহমান বলেন, বাংলাদেশের করপোরেট খাত তাদের সামাজিক দায়বদ্ধতা সম্পর্কে ভীষণভাবে সচেতন। এ ধরনের যেকোনো সংকট মোকাবিলায় তারা সবসময়ই জাতীয় উদ্যোগে শামিল হয়েছে। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী নিজের বক্তৃতায় করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইকে যুদ্ধ ও মানবতার জন্য মহাপরীক্ষা হিসেবে আখ্যা দিয়েছেন। তাই সরকারি-বেসরকারি উভয় খাতকে সম্পৃক্ত করে সব দিক থেকে এই যুদ্ধ লড়তে হবে।

প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা বলেন, আমি বিশ্বাস করি বেক্সিমকো গ্রুপের এই উদ্যোগ অন্যান্য ছোট-বড় প্রতিষ্ঠানগুলোকেও তাদের সাধ্যমতো এই সংকট মোকাবিলায় সরকারের সহায়তায় এগিয়ে আসতে উদ্বুদ্ধ করবে।

নাজমুল হাসান বলেন, বেক্সিমকো ফার্মা বিদেশ থেকে আমদানি করা ‘টিওয়াইভিইকে প্রটেকটিভ কাভারঅল’, মুখবন্ধনী, গ্লাভস, প্রটেকটিভ গগলসসহ পিপিই দুই ধাপে বিতরণ করবো।

 

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *