সিনহা হত্যা তদন্তে যা প্রয়োজন সবই করা হচ্ছে : র‌্যাবপ্রধান

সিনহা হত্যা তদন্তে যা প্রয়োজন সবই করা হচ্ছে : র‌্যাবপ্রধান

র‌্যাবের মহাপরিচালক চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন বলেছেন, অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মো. রাশেদ খান হত্যা মামলার তদন্ত ‘অত্যন্ত গুরুত্ব ও পেশাদারিত্বের’ সঙ্গে করছে র‌্যাব। তদন্ত কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে যা যা করা প্রয়োজন সবই করা হচ্ছে।

সোমবার (১৭ আগস্ট) বিকালে কক্সবাজারের টেকনাফের শামলাপুরে ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে মামলার তদন্তকারী সংস্থার প্রধান আল মামুন একথা জানান।

র‌্যাবের মহাপরিচালক বলেন, সিনহা মো. রাশেদ খান হত্যামামলার তদন্ত ঘিরে বাহিনীগুলোর মধ্যে কোনো সমন্বয়হীনতা নেই। আমি নিজেই অত্যন্ত গুরুত্বের সাথে এই মামলার তদন্ত কার্যক্রম তদারকি করছি। এই ঘটনা নিয়ে বাহিনীগুলোর মধ্যে কোনো সমন্বয়হীনতা নেই। সুষ্ঠুভাবে তদন্ত কার্যক্রম চলছে।

গত ৩১ জুলাই রাত সাড়ে ৯টার দিকে টেকনাফ বাহারছড়া চেকপোস্টে তল্লাশির সময় পুলিশের গুলিতে নিহত হন সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান। ৫ আগস্ট নিহত সিনহার বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস বাদী হয়ে কক্সবাজার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ইন্সপেক্টর লিয়াকত, ওসি প্রদীপ কুমার দাশসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করেন।

৬ আগস্ট বরখাস্ত ওসি প্রদীপসহ সাত আসামি কক্সবাজার সিনিয়র জুডিসিয়াল আদালতে আত্মসমর্পণ করেন। মামলার শুনানিতে র‌্যাবের পক্ষে প্রত্যেক আসামির ১০দিন করে রিমান্ডের আবেদন করলে আদালতের বিচারক ইন্সপেক্টর লিয়াকত, ওসি প্রদীপ এবং এসআই নন্দ দুলাল রক্ষিতকে সাতদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন। বাকি চারজনকে কারাফটকে দুইদিন করে জিজ্ঞাসাবাদের আদেশ দেন। এছাড়াও এ মামলায় পলাতক থাকা অপর দুই আসামির বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত।

এই পরিস্থিতিতে গত ৫ অগাস্ট সেনাপ্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ এবং পুলিশপ্রধান বেনজীর আহমেদ কক্সবাজার পরিদর্শন করে এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে তারা বলেছিলেন, এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে উসকানি দিয়ে সেনাবাহিনী ও পুলিশের মধ্যে সম্পর্কে যেন কেউ চিড় ধরাতে না পারে, সেজন্য সবাইকে সজাগ থাকতে হবে।

র‌্যাব কর্মকর্তারা জানান, আল মামুন অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা হত্যার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করতে কক্সবাজার বিমানবন্দর থেকে বিকাল ৪টার দিকে বাহারছড়ার শামলাপুরে যান। ৫টার দিকে ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে ফিরে আসেন।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *