বিল্ডিং দেখতে বিদেশ যাবেন ৩০ কর্মকর্তা!

বিল্ডিং দেখতে বিদেশ যাবেন ৩০ কর্মকর্তা!

বিল্ডিং নির্মাণ প্রকল্পে দুই কোটি টাকা খরচ করে এবার বিল্ডিং দেখতে বিদেশ যাবেন ৩০ কর্মকর্তা। এজন্য প্রত্যেক কর্মকর্তার পেছনে ব্যয় হবে ৬ লাখ ৬৬ হাজার টাকা। পরিকল্পনা কমিশনের সম্মতিতেই এই বরাদ্দ রাখা হয়েছে বলে জানা গেছে। সেইসঙ্গে পরামর্শক খাতে বড় অংকের বরাদ্দ চাওয়া হয়েছে। এক্ষেত্রে ৯৭৩ জন পরামর্শকের জন্য ১৯ কোটি ৮২ লাখ ৬৫ হাজার টাকা ধরা হয়েছে। ‘গণগ্রন্থাগার অধিদফতরের বহুতল ভবন নির্মাণ’ শীর্ষক প্রকল্পে এসব ব্যয় প্রস্তাব করা হয়েছে।

যদিও প্রকল্পটির মূল্যায়নে কোভিড-১৯-এর প্রভাব বিবেচিত হয়নি। কারণ, গত বছরের ২৬ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হয়েছিল প্রকল্প মূল্যায়ন কমিটির (পিইসি) সভা। ওই সভায় দেওয়া সুপারিশগুলো প্রতিপালন করায় জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) বৈঠকে উপস্থাপনের সুপারিশ দিয়েছে পরিকল্পনা কমিশন। যেকোনো বৈঠকে এটি অনুমোদনের জন্য তোলা হবে বলে জানা গেছে।

প্রকল্পটি প্রক্রিয়াকরণের দায়িত্বপ্রাপ্ত পরিকল্পনা কমিশনের আর্থ-সামাজিক অবকাঠামো বিভাগের সদস্য (সচিব) আবুল কালাম আজাদ বলেন, বিদেশ ভ্রমণ অনেক সময় প্রয়োজন হয়। তবে কেন এত মানুষের বিদেশ যেতে হবে?- সে বিষয়টি আমরা দেখছি। তাছাড়া পরামর্শক প্রয়োজন হলেও এতজন কেন? এই বিষয়টিও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এজন্য প্রকল্প সংশ্লিষ্টদের ডেকেছি।

পরিকল্পনা কমিশন সূত্র জানায়, ‘গণগ্রন্থাগার অধিদপ্তরের বহুতল ভবন নির্মাণ’ প্রকল্পটি বাস্তবায়নে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ৫৩৩ কোটি ৪৭ লাখ টাকা। প্রকল্পের আওতায় বহুবিধ সুবিধা সম্বলিত আধুনিক বহুতল ভবন নির্মাণের মাধ্যমে অবকাঠামোগতভাবে গণগ্রস্থাগার অধিদপ্তরের প্রধান কার্যালয়কে আন্তর্জাতিক মানে উন্নীত করা হবে।

এছাড়া অবকাঠামো এবং প্রযুক্তিগত সুবিধাদি বাড়ানোর মাধ্যমে পাঠক, গবেষক, তথ্য সংগ্রহকারী ব্যক্তিসহ সর্বসাধারণের কাছে গণগ্রন্থাগারের ভূমিকাকে আরও আকর্ষণীয় ও কার্যোপযোগী করে তোলা হবে।

সেইসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনা মতে জাতীয় গণগ্রন্থকেন্দ্রের সব জনবল ও কার্যক্রমকে এক ভবনে সংস্থাপনসহ দেশের সব সরকারি গণগ্রন্থাগারের যাবতীয় কর্মকাণ্ড কেন্দ্রীয়ভাবে সমন্বয় করা হবে বলে আশা করছেন সংশ্লিষ্টরা। প্রক্রিয়াকরণ শেষে অনুমোদন পেলে চলতি বছর থেকে শুরু হয়ে ২০২৪ সালের জুনের মধ্যে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে গণগ্রন্থাগার অধিদপ্তর ও গণপূর্ত অধিদপ্তর।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *