বঙ্গবন্ধুর ভাষণ সম্প্রচারের মাধ্যমে বিশেষ অধিবেশনের আনুষ্ঠানিকতা শুরু

বঙ্গবন্ধুর ভাষণ সম্প্রচারের মাধ্যমে বিশেষ অধিবেশনের আনুষ্ঠানিকতা শুরু

জাতীয় সংসদের প্রথম বিশেষ অধিবেশনের আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু হলো। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষ ‘মুজিববর্ষ’ উপলক্ষে আয়োজিত এই বিশেষ অধিবেশন স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সন্ধ্যা ৬টায় শুরু হয়।

বিশেষ অধিবেশনের কার্যক্রমের শুরুতেই জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাষণ সম্প্রচার করা হয়, যা তিনি ১৯৭১ সালের ১০ জানুয়ারি দেশে ফিরে দিয়েছিলেন।

এর আগে রবিবার (০৮ নভেম্বর) অবশ্য একাদশ সংসদের দশম এ অধিবেশনের প্রথম কার্যদিবসটি সাধারণ অধিবেশনের আকারে শুরু হয়।

বিশেষ অধিবেশন উপলক্ষে সংসদ সচিবালয় থেকে ব্যাপক প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। স্বাস্থ্য সুরক্ষায় নেওয়া হয়েছে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা। কোভিড-১৯ নেগেটিভ সব সংসদ সদস্য আজকের অধিবেশনে যোগদানের সুযোগ পেয়েছেন। সংসদ সচিবালয়ের যেসব কর্মকর্তা-কর্মচারী দায়িত্ব পালন করছেন তাদের সবার করোনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এছাড়া করোনা পরীক্ষা করা হয়েছে অধিবেশনে সংবাদ সংগ্রহে আসা সাংবাদিকদেরও। সংসদ সদস্যসহ সংসদ কক্ষে প্রবেশকারী সবার করোনার রিপোর্ট দেখে প্রবেশের সুযোগ দেওয়া হয়েছে। মাস্ক পরিধানসহ স্বাস্থ্য সুরক্ষা গ্রহণ করে অধিবেশন কক্ষে সংসদ সদস্যরা অবস্থান করছেন।

অধিবেশনে রাষ্ট্রপতি সংসদ কক্ষে প্রবেশের পর জাতীয় সংগীত প্রচার করা হয়। এরপর জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসের (১০ জানুয়ারি ১৯৭২) ভাষণ প্রচার করা হয় সংসদ কক্ষে।

রাষ্ট্রপতি মুজিববর্ষ উপলক্ষে বিশেষ অধিবেশনে ভাষণ প্রদান করবেন। রাষ্ট্রপতির ভাষণের পর আবারও জাতীয় সংগীত প্রচার হবে এবং তিনি সংসদ কক্ষ ত্যাগ করবেন। এরপর কিছুক্ষণের জন্য বিরতি দেওয়া হবে সংসদের বৈঠক। বিরতি শেষে সংসদের বৈঠক শুরু হলে সংসদ নেতা ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কর্মময় জীবন নিয়ে ১৪৭ বিধিতে আলোচনার জন্য সাধারণ প্রস্তাব উত্থাপন করবেন।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *