তাৎক্ষণিক মোবাইল থেকে তথ্য নিলেন প্রধানমন্ত্রী

তাৎক্ষণিক মোবাইল থেকে তথ্য নিলেন প্রধানমন্ত্রী

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক যখন কথা বলছিলেন। প্রধানমন্ত্রীর চোখ তখন  মোবাইল ফোনের স্কিনে। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জানালেন, সেখানকার সীমান্ত দিয়ে প্রতিদিন লোক ঢুকছে। চিকিৎসার জন্য যারা ভারত গিয়েছিল সারাদেশের মানুষ। বা সেদেশের মানুষও আসছে। যা নিয়ে তারা আতঙ্কিত। প্রধানমন্ত্রী তার কথার প্রেক্ষিতে তাৎক্ষণিক ফোন দেখেন,  সেখানে তথ্য আসছিল পরবর্তীতে বোঝা গেল। তাৎক্ষণিক সেই তথ্য দেখে প্রধানমন্ত্রী নির্দেশনা দেন। করোনাভাইরাস মোকাবিলায় এপ্রিল মাসে স্থলবন্দর দিয়ে কাউকে ঢুকতে দেয়া হবে না বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

মঙ্গলবার (৭ মার্চ) চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের জেলা প্রশাসকদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার করোনা পরিস্থিতি পর্যালোচনার সময় এ নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘ব্রাহ্মণবাড়িয়ার স্থলবন্দর আখাউড়া দিয়ে আজকে কেউ বাংলাদেশে আসেনি। এই যে আমি তথ্য নিলাম এখনি।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘এপ্রিল মাসে আমরা কাউকেই ঢুকতে দেব না। স্থলবন্দর দিয়ে যারা ঢুকবে তাদেরকে সঙ্গে সঙ্গে বিজিবি কোয়ারেন্টাইনে রেখে দেব। তারপর আমাদেরকে খবর দেবে। কাজেই সবাইকে বলে দেয়া উচিত, ঢোকার চেষ্টা না করা। এই মাসটা যদি আমরা সুরক্ষিত রাখতে পারি, তাহলে আমাদের চিন্তা থাকবে না।’

প্রতিবেদনের ভিত্তিতে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা ইতোমধ্যে বিজিবিকে নির্দেশ দিয়েছি, যারাই ঢুকতে চেষ্টা করবে সীমান্ত দিয়ে, সেখানেই তারা আটকাবে, সেখানেই তাদের কোয়ারেন্টাইনে রাখা হবে। সেভাবে জায়গা ঠিক করা আছে। গতকালকে এই অভিযানে প্রায় ৭২ জন, বিভিন্ন জায়গায়, যেমন-বেনাপোলে ৫৪ জন, ভোমরায় ১৩ জন, ভুরুঙ্গামারীতে একজন, বাংলাবান্দায় চারজনকে আমরা কোয়ারেন্টাইনের ব্যবস্থা করে দিয়েছি।’

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *