আব্দুর রাজ্জাকের ৮ম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত

আব্দুর রাজ্জাকের ৮ম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত

ঢাকা, ২৩ ডিসেম্বর, ২০১৯ (বাসস) : মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এবং সাবেক পানি সম্পদমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাকের ৮ম মৃত্যুবার্ষিকী আজ আলোচনা সভা, মরহুমের কবরে শ্রদ্ধা নিবেদনসহ বিভিন্ন কর্মসূচির মাধ্যমে পালিত হয়েছে।
এ উপলক্ষ্যে আজ সকাল ১০টায় রাজধানীর বনানীর কবরস্থানে প্রয়াত আব্দুর রাজ্জাকের কবরে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করে আওয়ামী লীগ।
এ সময় আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য তোফায়েল আহমেদ, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. আবদুস সোবহান গোলাপ এমপিসহ দলের অন্যান্য নেতারা উপস্থিত ছিলেন।
পরে মরহুমের কবরে আওয়ামী যুবলীগ, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবকলীগ, জাতীয় শ্রমিক লীগ, মহিলা আওয়ামী লীগ ও যুব মহিলা লীগসহ দলের অন্যান্য সহযোগী সংগঠনের নেতারা শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।
শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে মরহুমের রুহের মাগফিরাত কামনা করে ফাতেহা পাঠ ও দোয়া করা হয়।
২০১১ সালের এই দিনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্নেহধন্য, আব্দুর রাজ্জাক লন্ডনে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মুত্যুবরণ করেন।
সংগ্রামমুখর বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবনের অধিকারী আব্দুর রাজ্জাক তার সমগ্র জীবন উৎসর্গ করেছিলেন বাঙালির স্বাধিকার, শান্তি ও সামাজিক মুক্তির আন্দোলনে। ছাত্রজীবন থেকে আমৃত্যু তিনি ছিলেন বাঙালি জাতির প্রতিটি গণতান্ত্রিক আন্দোলনে প্রথম সারির সংগঠক ও নেতা।
‘৬২ সালের শিক্ষা আন্দোলন, ৬৬’র ৬ দফা, ৬৯’এর গণঅভ্যুত্থান, স্বাধীনতা সংগ্রাম এবং মুক্তিযুদ্ধে তিনি সক্রিয় ভূমিকা পালন করেন। তিনি ১৯৬৬-১৯৬৭ ও ১৯৬৮ সালে ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন।
আব্দুর রাজ্জাক ১৯৭০ সালে প্রথমবারের মতো জাতীয় সংসদের সদস্য নির্বাচিত হন। এরপর ১৯৭৩, ১৯৯১, ১৯৯৬ ও ২০০৯ সালে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিজয়ী হন। ১৯৯১ ও ১৯৯৬ সালের নির্বাচনে ২টি করে আসনে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন তিনি।
১৯৭৯ ও ১৯৮১ সালে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন আব্দুর রাজ্জাক। ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর আব্দুর রাজ্জাক পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন।
তিনি ছিলেন ’৭১-এর ঘাতক দালাল ও যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের দাবিতে গড়ে ওঠা আন্দোলনের অন্যতম পুরোধা। একটি উন্নত সুখী-সমৃদ্ধ সুন্দর অসাম্প্রদায়িক গণতান্ত্রিক বাংলাদেশ গড়ে তোলার সংগ্রামে প্রয়াত আব্দুর রাজ্জাকের অনন্য অবদান বাঙালি জাতির স্মৃতিতে অম্লান থাকবে।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *