অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মো. রাশেদ খান হত্যার ঘটনা তদন্তে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের গঠিত কমিটি আনুষ্টানিকভাবে তদন্ত কার্যক্রম সম্পন্ন করেছে

অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মো. রাশেদ খান হত্যার ঘটনা তদন্তে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের গঠিত কমিটি আনুষ্টানিকভাবে তদন্ত কার্যক্রম সম্পন্ন করেছে
নিজস্ব প্রতিবেদক
অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মো. রাশেদ খান হত্যার ঘটনা তদন্তে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের গঠিত কমিটি আনুষ্টানিকভাবে তদন্ত কার্যক্রম সম্পন্ন করেছে। প্রস্তুত করেছে দীর্ঘ ৮০ পৃষ্ঠার লিখিত তদন্ত প্রতিবেদন।  এর সাথে ছবি, ম্যাপ ও নানা চিত্র সংবলিত ২ খণ্ডে সর্বমোট প্রায় ৬০০ পৃষ্টার পুর্ণাংগ প্রতিবেদন প্রস্তুত করা হয়েছে। তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেবেন আগামী পরশু ৭ সেপ্টেম্বর। তদন্ত কমিটির প্রধান চট্টগ্রামের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার মিজানুর রহমান কক্সবাজারে এই তথ্য জানান।
কক্সবাজার সার্কিট হাউজে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের গঠিত কমিটির আনুষ্টানিকভাবে তদন্ত কার্যক্রম সম্পন্ন শেষে সাংবাদিকদের তিনি আরও বলেন, ‘কমিটি অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মো. রাশেদ খান হত্যার ঘটনা তদন্ত করতে গিয়ে এ ঘটনায় সংশ্লিষ্ট ৬৮ জনের সঙ্গে কথা বলেছে, তাদের বক্তব্য গ্রহণ করেছে। এইসব কথা-বক্তব্য এবং প্রাপ্ত তথ্য-উপাত্ত যাচাই-বাছাই ও বিশ্লেষণ করে কমিটির সকল সদস্য সর্বসম্মতভাবে প্রতিবেদনটি চূড়ান্ত করেছে। সিনহা হত্যার ঘটনাটি কেন ঘটেছে এবং এ ঘটনায় কারা দায়ী তা প্রতিবেদনে উল্লেখ থাকবে।’
গত ২ আগস্ট এ কমিটি গঠন করা হয় এবং  কার্যক্রম শুরু করে ৩ আগস্ট। সাত কর্মদিবস অর্থাৎ ১০ আগস্ট কমিটিকে প্রতিবেদন জমাদানের সময় বেধে দেয় মন্ত্রণালয়। এরপর প্রথমবার কমিটির সময় বাড়ানো হয় ২৩ আগস্ট পর্যন্ত। পরে কমিটির আবেদনের প্রেক্ষিতে আবারও সময় বাড়িয়ে দেওয়া হয় ৩১ আগস্ট পর্যন্ত। এ সময়ের মধ্যে টেকনাফ থানার বহিষ্কৃত ওসি প্রদীপ কুমার দাশের বক্তব্য গ্রহণ করতে না পারায় কমিটির মেয়াদ সর্বশেষ ৭ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বাড়ানো হয়। ২ সেপ্টেম্বর কমিটি কক্সবাজার জেলা কারাগারে প্রদীপ কুমার দাসের বক্তব্য গ্রহণ করেন। এরপর আজ আনুষ্টানিকভাবে তদন্ত কার্যক্রম সম্পন্ন করে ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *